100 দিনের কাজের ব্যাপক দুর্নীতি 94হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ

MANREGA loot corruption KALNA

১০০দিনের কাজের টাকা আত্মসাৎ দাবি সিপিএমের:

০৫/০৭/২০২০ প্রতিনিধিঃ রাজকুমার ঘোষ ও আমজাদ আলী
পূর্ব বর্ধমান:- 100 দিনের কাজের ব্যাপক দুর্নীতি. কাজ না করিয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতা ও সুপারভাইজার মিলে প্রায় 94 হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ, এই অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল বিকেলে কালনার কুতুবপুর গ্রামের সিপিআইএম পার্টির পক্ষ থেকে গ্রামীণ সভা বসিয়ে স্থানীয় সুপারভাইজার স্বপন বারিকে দিয়ে টাকা ফেরতের মুচলেখা লিখিয়ে নেন সিপিআইএম কর্মী-সমর্থকরা।

আদালত নয় - সালিশি সভা শেষ কথা। ফিরছে আবার অরাজকতার দিন?

কার্যত জোরপূর্বক মুচলেখা লেখানো হয়েছে এই দাবি নিয়ে কালনা থানা পুলিশের দ্বারস্থ হলো ওই তৃণমূল নেতা ও সুপারভাইজার।

একশো দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তৃণমূল নেতা আব্দুল মালেক শেখের নির্দেশে স্থানীয় সুপারভাইজার স্বপন বারিক কাজ না করে তার স্ত্রী এবং ছেলের নামে 393 কাজের  মজুরি আত্মসাৎ করেছে - এমনি অভিযোগ তুললো স্থানীয় সিপিআইএম কর্মীরা।

পুরো বিষয়টি সরকারকে ভুল বুঝিয়ে টাকা আত্মসাৎ করেছে তৃণমূল কর্মী এবং সুপারভাইজার মিলে - এই ঘটনা ঘটার পরে গতকাল স্থানীয় সুপারভাইজার স্বপন বারিক এবং তার দুই সহযোগীকে বসিয়ে জোরপূর্বক মুচলেকা লিখে নেওয়ার অভিযোগ সিপিআইএম কর্মীদের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পর পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল কর্মীরা - মুচলেকা লেখা সুপারভাইজার স্বপন বাড়িকের দাবি গতকাল মুচলেখা না লিখে দিলে ঘটনাস্থলেই খুন করা হতো তাকে - এক প্রকার জোরপূর্বক মুচলেকা লিখতে বাধ্য হয়েছেন তারা; পাশাপাশি এ বিষয়ে স্থানীয় সিপিএম নেতাদের দাবি জোরপূর্বক কোন মুচলেখা লেখানো হয়নি, বিষয়টি গ্রামবাসীদের সামনে তারা স্বইচ্ছায় টাকা ফেরত দেবেন বলে মুচলেকা দিয়েছেন। এ বিষয়ে তৃণমূল কালনা দুনম্বর এরিয়ার তৃণমূল ব্লক সভাপতি প্রণব রায় দাবি ওই সুপারভাইজার ও স্থানীয় তৃণমূল নেতারা কোন দুর্নীতির সাথে যুক্ত নয়. ভুল বুঝে তাদের ওপরে দোষারোপের চেষ্টা করা হচ্ছে।

বিস্তারিত জানার জন্য খবর দেখুন -

সঙ্গে থাকুন - এক কদম এগিয়ে থাকুন

আরো পড়ুন:

নিচের ছবির উপরে ক্লিক করুন
কেন্দ্রের বিরুদ্ধে পথে নামছে তৃণমূল

সত্য গোপন করেছেন
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ - চন্দন সোম


Reactions

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য